গোপালগঞ্জে পানির দামে জমি কিনতে, দেয়াল তুলে ফাঁদ পেতেছেন প্রভাবশালী পরিবার

সারাদেশে প্রতিনিয়ত নানা ধরনের অপরাধমূলক কর্মকান্ড ঘটে।তবে এবার ঘটলো এক ভয়ানক কান্ড নিজের স্বার্থ আদায় কারার জন্য ফাঁদ পেতেছেন । জানা গেছে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় বাড়ি ঘর কম দামে বিক্রি করে দিতে প্রভাবশালী একটি পরিবার দেয়াল তুলে অবরুদ্ধ করে রেখেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগ উঠেছে উপজেলার করফা গ্রামের প্রভাবশালী ব্যবসায়ী নুর ইসলাম শেখ কোটালীপাড়া উপজেলার নয়াকান্দির তরুর বাজারে ব্যক্তিগত জমিসহ সরকারী জমি দখল করে নিয়েছে। দখলকৃত জমির উপর দীর্ঘ দেওয়াল তুলে দেওয়ায় বিপাকে পড়েছেন ৬১টি পরিবার ও ব্যবসায়ীরা।

ভুক্তভোগী শাজাহান ব্যাপারী জানান, আমাদের বাড়িঘর পানির দামে কিনে নিতেই এই দুর্ভোগের ফাঁদ পেতেছেন নূর ইসলাম।কয়েকটি পরিবারের লোকজন ও এ সকল পরিবারের স্কুলগামী শিক্ষার্থীদেরকে মই দিয়ে দেওয়াল পার হয়ে যাতায়াত করতে হয়। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন তারা। এ নিয়ে প্রতিবাদ করলেই দেওয়া হয় হুমকি। ফলে অনেকেই ভয়ে কথা বলতে চান না। আমি দ্রুত জমি ফেরতসহ দোষীদের শাস্তির দাবী করছি।

কান্দি ইউনিয়নের নয়াকান্দি তরুর বাজারের বিধবা আলোমতি বিশ্বাস বলেন, ‘তরুর বাজারে আমাদের একটি দোকান ঘর ছিল। এই দোকান ঘরটিতে আমার ছেলে ব্যবসা করতো। যা আয় হতো তা দিয়ে আমাদের সংসার চলতো। ঘরটি নুরুল ইসলাম শেখ ভেঙ্গে দিয়েছে। এখন খেয়ে না খেয়ে আমাদের দিন চলে’-

একইভাবে বিধবা চিপমনি বিশ্বাস, আরতি বিশ্বাস, সুবোধ সমাদ্দার, সুখরঞ্জন জয়ধর, খগেন বিশ্বাস, শান্তি জয়ধর, আক্কাস শেখ, নুরুই ইসলাম একই ধরণের অভিযোগ করেন। এ সকল পরিবারের লোকজন দ্রুত জমি ফেরত পাওয়াসহ দোষী ব্যক্তির শাস্তি ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এ ব্যাপারে জানার জন্য অভিযুক্ত নুর ইসলাম শেখকে পাওয়া যায়নি। তবে তার ভাই ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম জানান,আমার ভাইয়ের বিরুদ্ধে করা অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমরা কারো জমি দখল করিনি। জমি ও দোকান ঘর গুলো সম্পূর্ণ আমার ভাই বৈধ্য ভাবে ক্রয় করেছেন।

কান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান উত্তম কুমার বাড়ৈ বলেন, নুর ইসলাম শেখ সরকারি ও ব্যক্তিগত জমি দখল করেছেন এমন অভিযোগ আমি শুনেছি। এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের কাছে দাবী জানাচ্ছি ।

এ ঘটনার ব্যাপারে কোটালীপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস এম মাহফুজুর রহমান বলেন, এমন ঘটনা শুনেছি ঘটনার তদন্ত করে দোষী ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা ।অপরাধী যেেই হোক না কেন বিন্দু মাত্র ছাড় পাবে না ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*