সীতাকুণ্ড মেলায় ফেলে যাওয়া মা’কে অবশেষে ফিরিয়ে নিলো ছেলে! | পড়ুন বিস্তারিত ...

সীতাকুণ্ড মেলায় ফেলে যাওয়া মা’কে অবশেষে ফিরিয়ে নিলো ছেলে!

অভাবে খাওয়াতে না পারায় মাকে ফেলে যাওয়ার স্বীকারোক্তি। সীতাকুণ্ড মেলায় ফেলে যাওয়া মা’কে ফিরিয়ে নিলো ছেলে! চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড চন্দ্রনাথ ধামে শিব চতুর্দশী মেলায় নিয়ে এসে ফেলে যাওয়া সেই বৃদ্ধা মা’কে অবশেষে ফিরিয়ে নিয়ে গেল ছেলে। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে তার ছেলে সৃজন চক্রবর্তী এসে তাঁকে সাথে নিয়ে যান। এসময় তিনি অপরাধ স্বীকার করে জানান যে তীব্র অভাব অনটনের কারণে মাকে দু’বেলা খাওয়াতে না পারায় তিনি ফেলে যেতে বাধ্য হয়েছিলেন। ঘটনাটি সর্বত্র চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার চট্টগ্রামের দেওয়ানহাট এলাকার মেম গলি থেকে মাকে মা পারুল চক্রবর্তীকে (৮০) নিয়ে সীতাকুণ্ড চন্দ্রনাথ মহাতীর্থে আসেন তারই বড় ছেলে সৃজন চক্রবর্তী। এরপর তাকে ফেলে চলে যান তিনি। ঘটনার পর কোনো স্বজন ছাড়া একাকী এক বৃদ্ধাকে ঘুরতে দেখে কয়েকজন তাকে মন্দির সড়কের বটতলী কালী বাড়িতে রেখে যান।

এরপর থেকে তিনি সেখানে ছিলেন।এ সংবাদটি বুধবার রাতে কালের কণ্ঠ অনলাইনে প্রকাশিত হলে ভাইরাল হয়ে যায়। এরপরই বৃদ্ধার আত্মীয় স্বজনরা ছেলেদের তিরস্কার করেন। এতে বৃহস্পতিবার সকালে বড় ছেলে সৃজন চক্রবর্তী মহাতীর্থে এসে মেলার কমিটির নেতৃবৃন্দের সাথে যোগাযোগ করে মাকে নিয়ে যান।

সীতাকুণ্ড মেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক পলাশ চৌধুরী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বৃদ্ধাকে তাঁর ছেলে রেখে যাবার খবর পেয়ে আমাদের কমিটির লোকজন তাকে মন্দিরে ও ঘরে রেখে খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থা করেন। বুধবার রাতেও তিনি এক সদস্যের ঘরে যত্নে ছিলেন। কালের কণ্ঠে সংবাদটি প্রকাশিত হবার পর বৃদ্ধার পরিচিত বিভিন্ন জন আমার সাথেও যোগাযোগ করেন।

পরে তার ছেলে সৃজন চক্রবর্তীও আসেন। এবং নিজের কৃতকর্মের জন্য দুঃখ প্রকাশ করে জানান যে অভাব অনটনের কারণেই তাকে ফেলে যেতে হয়েছিলো। অর্থের অভাবে তিনি মায়ের ভরন পোষণ ঠিক মত করতে পারছেন না বলে জানিয়ে অনুতাপ প্রকাশ করেন এবং তিনি মাকে ফিরিয়ে নিয়ে যান। সূত্র: কালেরকন্ঠ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*