‘এই এখানে মন্ডপ কমিটির সভাপতি কে রে? দিয়ে দে চলে যাই’ বলেই হাত তালি

মায়ের পূজা করছো? কত খরছা গেছে? অনেক টাকা! কিন্তু আমরা চাইলে বলবে টাকা নাই। দে আমাদের কিছু দে চলে যাই। এই এখানে মন্ডপ কমিটির সভাপতি কে রে? দিয়ে দে চলে যাই। বলেই হাত তালি।’ এভাবেই সিলেটের ওসমানীনগরে একাধিক দূর্গা পূজা মন্ডপে চাঁদাবাজি চালিয়ে যাচ্ছে স্থানীয় কয়েকজন হিজড়া।

পাখি নামের এক তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তির নেতৃত্বে মন্ডপগুলোতে চাঁদাবাজি হচ্ছে বলে একাধিক পূজামন্ডপের পূজারীরা অভিযোগ তুলেছেন। পূজা মন্ডপের নিরাপত্তায় থাকা প্রশাসনও নির্বিকার। এ নিয়ে স্থাণীয় পূজারীরাও রযেছেন আতংকে। কেননা তারা যা টাকা দাবি করা তা দিতে না পরলে তারা সেখানে বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টি করে। অনেক পূজারীরা তাদের মন্ডপের শান্ত পরিবেশ অশান্ত না করতে তাদের দাবি অনুসারে টাকা দিয়ে দেন।

তেরহাতি পূজা মন্ডপের সাধারণ সম্পাদক ঝুমুর দাশ বলেন, তারা মন্ডপে এসে ১ হাজার টাকা দাবি করেন অবশেষে আমরা ৪শ টাকা দিয়ে অনেক বুঝিয়ে বিদায় করেছি। ওসমানীনগর থানার ভার প্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি এস এম আল মামুন বলেন, ওসমানীনগরে কোথাও কোন হিজড়াদের চাঁদাবাজির ঘটনা ঘটেনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*